বরযাত্রীবাহী ট্রলারে ডাকাতি, ১২ জনকে কুপিয়ে ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট

দৈনিক জনকণ্ঠ
প্রকাশিত জুন ২৭, ২০২২
বরযাত্রীবাহী ট্রলারে ডাকাতি, ১২ জনকে কুপিয়ে ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের ওপর দিয়ে প্রবাহিত মেঘনা নদীতে বরযাত্রীবাহী ট্রলারে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতরা ট্রলারের সবাইকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা নগদ টাকা, মোবাইল ও স্বর্ণালংকারসহ ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার মেঘনা শিল্প নগরীর ফ্রেশ সুগার মিলের সামনে মেঘনা নদীতে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ডাকাতরা ১২ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। আহতদের সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চরগোয়ালদী গ্রামের মোতালেবের ছেলে মালয়েশিয়া প্রবাসী নুরে আলম গত শুক্রবার মেঘনা উপজেলার সাতআনি গ্রামের আবুল কাসেমের মেয়ে শারমিনকে বিয়ে করেন। সোমবার ৩০-৩৫ জন বরের আত্মীয়-স্বজন তার শ্বশুর বাড়ি খেয়ে সন্ধ্যার দিকে ফিরে আসার পথে মেঘনা নদীর প্রতাপের চর এলাকার ফ্রেশ সুগার মিলের সামনে আসা মাত্র ১০-১৫ জনের একটি ডাকাতদল আগ্নেয়াস্ত্র, চাপাতি ও লোহার রড নিয়ে তাদের বহনকারী ট্রলারে হানা দেয়। এ সময় ডাকাতরা ট্রলারে থাকা লোকজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে।

ঐ ট্রলারে থাকা নুরে আলম, আব্দুল বাতেন, জুবায়ের, হাফেজ আহম্মদ, আবু ছালে, শাহ পরান, সেলিম, বিল্লাল, নাসরিন, নুরজাহান, খোদেজাসহ ১২ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

আহত জুবায়ের জানান, মেঘনা উপজেলার সাতআনি গ্রাম থেকে দাওয়াত খেয়ে নবদম্পতি নিয়ে ফেরার পথে ফ্রেশ সুগার মিল বরাবর নদীর মাঝখানে ডাকাতরা ট্রলারযোগে এসে আমাদের ট্রলারে হানা দেয়। ডাকাতরা সকলেই মুখোশধারী ছিল। আমাদের কুপিয়ে ও পিটিয়ে তারা ৭ ভরি স্বর্ণসহ প্রায় ৩০ লাখ টাকার মালপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, নদীতে ডাকাতির খবর শুনেছি। এখনো কেউ অভিযোগ দায়ের করেননি। তবে নদীর বিষয়টি নৌ পুলিশ দেখভাল করে।

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন